• Categories

  • Archives

  • Join Bangladesh Army

    "Ever High Is My Head" Please click on the image

  • Join Bangladesh Navy

    "In War & Peace Invincible At Sea" Please click on the image

  • Join Bangladesh Air Force

    "The Sky of Bangladesh Will Be Kept Free" Please click on the image

  • Blog Stats

    • 315,721 hits
  • Get Email Updates

  • Like Our Facebook Page

  • Visitors Location

    Map
  • Hot Categories

“This is My Will”: “Continue the Resistance, Fight any Foreign Aggressor against Libya,…”

Complete Text of Testament

by Muammar Gaddafi

Translated from Arabic by the BBC



“This is my will. I, Muammar bin Mohammad bin Abdussalam bi Humayd bin Abu Manyar bin Humayd bin Nayil al Fuhsi Gaddafi, do swear that there is no other God but Allah and that Mohammad is God’s Prophet, peace be upon him. I pledge that I will die as Muslim.

Should I be killed, I would like to be buried, according to Muslim rituals, in the clothes I was wearing at the time of my death and my body unwashed, in the cemetery of Sirte, next to my family and relatives.

I would like that my family, especially women and children, be treated well after my death. The Libyan people should protect its identity, achievements, history and the honorable image of its ancestors and heroes. The Libyan people should not relinquish the sacrifices of the free and best people.

I call on my supporters to continue the resistance, and fight any foreign aggressor against Libya, today, tomorrow and always.

Let the free people of the world know that we could have bargained over and sold out our cause in return for a personal secure and stable life. We received many offers to this effect but we chose to be at the vanguard of the confrontation as a badge of duty and honor.

Even if we do not win immediately, we will give a lesson to future generations that choosing to protect the nation is an honor and selling it out is the greatest betrayal that history will remember forever despite the attempts of the others to tell you otherwise.”

Source:

https://i0.wp.com/www.globalresearch.ca/site_images/topbanner.jpg

A Cute Letter From a Muslim Girl to Her Christian Parents

Hello Mami and Papa,

I don’t know how else to approach you in order to explain my reasoning behind my life changing decision and have you listen and understand at the same time.

Since I can long remember I have not be a strong believer of Christianity, there was a lot that did not make sense to me, for example, why I have to beg for forgiveness to a priest? Why I have to pray to saints and not straight to God, why is Jesus the SON of God, why are their SOO many versions of the bible?

The religion became a fascination to me, and I truly wanted to know more. I purchased a few books in the UK and read some pamphlets on the religion. I did not make any decisions but I continued to read and become more familiar to Islam.

Islam began making sense to me, the idea that we pray only to Allah, that we ask Allah for help and for forgive us, how a book (the Quran) that was written thousands of years ago remains unchanged as of today (there are different translations but no different versions) . Also how a book that was written years ago managed to explain scientific situations that was only discovered by man kind only a couple of year ago. Or how the Quran has managed to explains how babies develop in the womb? How would anyone thousands of years ago know this and in such detail? Especially since scientist discovered the explanation of these situations less that 100 years ago?? How can we explain those wonders of the book?

Also how can I deny the holy book when it has been so clear in explaining advanced technology, how the day turns into the night, the creation of human beings by water (as we know scientifically to be known that we came from cells) layers of heaven (which we describe now in scientific terms as the atmospheric levels?). Furthermore, the beginning of the universe and the movement of tectonic plates (there are numerous other examples of the science behind the Quran).

What also has touched me is that Islam believes in ALL THE PROPHETS – JESUS MOSES DAVID ABRAHAM AND MOHAMMAD (pbuh) they all coexist in he Quran, the Quran also tells us that we must respect ALL religions. Mami and Papa, I can not explain how many times I have made my self clear to you of what I believed in, I could not have given myself away anymore! Every time I spoke hours and hours on end about Islam, and how I knew so much.

Also I began of interacting more with Muslim friends; I felt that they would be able to give me a clear explanation of Islam. Also Islam played a major part in self respect, and it helped my appreciate my self more, and realize that I should stay away from harmful situation such as drinking, smoking, going out with people that only meant trouble. I told you what my friends were like, they were heading the wrong direction, and I did not want to be in that direction and believing in Islam made it easier for me to walk away from the powers of shaytaan and do better.

Also Islam was and has been the reason for my success in school. I have placed my mind in my studies instead of going out all the time as my old friends did, and trust me you would not like me to be like them, because if I had been than you would have every single reason to think I was a bad person, that I was irresponsible and that I was a disgrace to the family.
After almost one year of studying Islam I had no doubt in my mind that it was not the right religion.

I was prepared to become a Sunni Muslim. In early June 2006 I attended the mosque in Westbury NY to ask further questions about Islam and after speaking to a sister and the imam of the mosque I knew that it was time to make the right decision. I did shahada around 2 weeks later which is the Islamic creed; it means to testify or to bear witness in Arabic, the declaration of the belief. I stated in front of 80- 100 Muslimsash hadu anla ilaha illallah, wa ash hadu anla Mohammad roosul Allah” which translates to “I believe in one and only God and Mohammad is his messenger” It was such a beautiful experience.

I had been accepted into the Islam. I was welcomed by every single Muslim at the mosque with open arms, I felt too special, it felt so right, I knew I had made the best decision in my life, and it was something that was going to bring positive sides of me. It is so hard to explain the rush, and the emotional and faith satisfaction that I had at that moment, but I knew there was something wrong, that I was not able to celebrate my happiness with the people in my life that I loved the most, the meant to most to me, and that was you and papi. The moment was wonderful but not complete. I really wish you could have been as proud of me as I was for myself.

It hurt so much to think and feel that my biggest challenge would be to openly tell you about me and Islam, about me and my faith, about me and my happiness. I know that you both want the best for me, you want me to be happy and you want me to be responsible, and you want me to be independent and make the RIGHT decisions. I have done the right decision, and I made it all by myself, and I read about Islam all by myself, I discovered Islam in me all by myself, IT WAS ME who made every decision from the point were I began in the Islamic interest to the point where I am now.

I can’t lie to you and tell you I had no influences because how else would I have been influenced by wanting to know more about Islam? Well from observing other people. How do we know as humans whether eating a chocolate cake taste good or not? We taste it, we try others to compare and then we make a final decision and if we like it we continue to eat if we don’t then we disregard it.

Mami and Papa, I know I might seem weak sometimes in certain situations, and I know I display signs of vulnerability , but converting into Islam was decided by me, its hard and it hurts to think that all this studying, research of Islam and me converting has been credited to someone else, but at the end of the day the only one that knows the truth is God and it is to him that I will be standing in front of on the day of Judgment, and it is him that knows everything.
It is stated in the Quran that all the prophets were messengers of God, they all came to spread the news and religion of God, but that they all came in their own time, and that Mohammad (pbuh) was the last messenger of God.

I know my word is hard to believe after the incidents these past two days, but there is nothing more that I can do to prove to both of you when it comes to the decisions that I made about Islam.

And most importantly I want you both to understand that it is virtually impossible to explain ALL of my reasoning behind my belief in Islam, this email is not even 1/100th of it all, I have spent hours and hours and hours speaking to others about my feeling towards Islam, and I wish and pray to Allah that one day I will be able to express everything I feel about Islam with both of you.

I still remain to be the daughter that you had almost 21 years ago, it has not changed the way I feel about you, you still are the most important people in my life, I love you both more than anything, I just have a different belief and its one which will bring you no shame, it will not physically hurt you, and I will not patronize our relationship.

I love you both very much and I only pray for the best,

Carolina Amirah DeFonseca

 

Source :

https://i1.wp.com/www.faithofmuslims.com/blog/wp-content/uploads/2011/07/fantasy_banner.jpg

অমর্ত্য সেনের আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান : ইসলাম ত্যাগ করে দ্বীন-ই ইলাহি গ্রহণের আহ্বান : ধর্মনিরপেক্ষতাবাদের উত্স হিন্দু ধর্ম

 

নোবেলবিজয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. অমর্ত্য সেন তার ‘আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ বইয়ে কোরআন ও হাদিস নির্দেশিত ইসলামকে প্রত্যাখ্যান করতে মুসলমানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। এগুলো হাজার বছরেরও বেশি পুরনো হওয়ায় তা পরিত্যাগ করে হিন্দু ধর্ম থেকে উদ্ভব সম্রাট আকবরের ‘দ্বীন-ই-ইলাহি’কে মূলনীতি হিসেবে গ্রহণ করার পরামর্শ দেন তিনি। ধর্মনিরপেক্ষতাবাদের (সেক্যুলারিজম) ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি এ মত দেন।

অন্যদিকে সেক্যুলারিজমকে হিন্দু ধর্ম থেকে উদ্ভব বলে যুক্তি দেন তিনি। তার মতে, হিন্দু ধর্ম কোনোভাবেই ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ-বিরোধী নয়। কেউ ধর্মনিরপেক্ষতাকে বিশ্বাস করলে তাকে ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করতে হবে। আর বিশ্বাসী হয়ে উঠতে হবে হিন্দু ধর্মের প্রথায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী ‘আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ বইয়ের সমালোচনা করে ‘বাংলাদেশ পলিটিক্যাল সায়েন্স রিভিউ’ নামের গবেষণা জার্নালে একটি প্রবন্ধ লিখেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ প্রকাশিত ওই জার্নালের ৭ম সংখ্যায় এটি প্রকাশিত হয়েছে। অধ্যাপক ড. শওকত আরা হোসেন সম্পাদিত গবেষণা জার্নালে ওই প্রবেন্ধের শিরোনাম হলো ‘অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন ও দৈশিক দোষের আবর্তে ভারতীয় সেক্যুলারিজম : বিভ্রান্তিকর একটি ব্যাখ্যা’।

অধ্যাপক ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী লিখেছেন, ‘নোবেলবিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. অমর্ত্য সেনের মতামত দৈশিক দোষে দুষ্ট। সেক্যুলারিজম মূলতই একটি অগ্রহণীয় মতবাদ। ধর্ম ও সেক্যুলারিজম পারস্পরিক বিপরীত মত। ইসলাম ধর্ম নিয়ে তিনি যে মত দিয়েছেন, তা সর্বতোভাবে বিভ্রান্তিকর। আর সেক্যুলারিজম যদি হিন্দু ধর্ম থেকে উদ্ভবই হয়, তাহলে তা প্রকৃত ধর্মমত বাদ দিয়ে মুসলমানরা গ্রহণ করতে পারেন না।’

ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী তার প্রবন্ধের শুরুতে নোবেলবিজয়ী ড. অমর্ত্য সেনের ১১টি বইয়ের বিষয়বস্তু প্রশংসা করেন। অসমতা, দারিদ্র্য, দুর্ভিক্ষ, সক্ষমতা ও উন্নয়ন সম্পর্কিত ড. সেনের বইগুলো পাঠকপ্রিয় ও অগ্রগতির জন্য সহায়ক বলে মনে করেন তিনি। তবে ভারতীয় ইতিহাস, সংস্কৃতি ও পরিচয় নিয়ে লেখা অমর্ত্য সেনের ‘আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ বইটি একদেশদর্শিতা ও সাম্প্রদায়িক দোষে দুষ্ট হওয়ার কারণে সমালোচনার যোগ্য বলে ড. চৌধুরী মনে করেন। তিনি বলেন, বাইরে খাঁটি মনে হলেও অমর্ত্য সেন প্রকৃতপক্ষে হিন্দুত্ববাদের বশ্যতা স্বীকার করেই এ বইটি লিখেছেন।

ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী বলেন, আমি বইটির পুরোটা পড়েছি। তার লেখা থেকে নানা প্রশ্ন জেগে ওঠায় সমালোচনা লিখতে বাধ্য হয়েছি।

বইটির প্রথমাংশে ড. অমর্ত্য সেন ভারতের প্রাচীন ইতিহাস ও সমকালীন প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। এতে তিনি বলতে চেষ্টা করেছেন, ধর্মের বিভিন্নতায় সাহিত্য, রাজনীতি, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান ও গণিতের উন্নতির পথ ধরে ভারতীয় সেক্যুলারিজমের উত্পত্তি হয়েছে। ভারতীয় গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সেক্যুলারিজম মূলতই হিন্দু ধর্মের ধারাবাহিক বিবর্তনে হয়েছে। মুসলমানদের মুঘল ও পাঠান শাসনও এক্ষেত্রে প্রভাবিত করেছে। বিশেষ করে সম্রাট আকবরের ‘দ্বীন-ই-ইলাহী’ ভারতীয় ঐতিহ্য ও সেক্যুলারিজমকে গড়ে উঠতে সহায়তা করেছে।

গবেষণা প্রবন্ধের উপসংহারে ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী বলেন, নোবেলবিজয়ী অমর্ত্য সেন একজন সম্মানিত ও জ্ঞানী ব্যক্তি হলেও তিনি ইসলাম ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। পৃথিবীর যে কোনো ধর্মপ্রাণ মুসলমান এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করবেন। ড. হাসানুজ্জামান বলেন : ‘Islam can be accepted when Amartya’s prescriptions of destroying Islam by disobeying Allah and Rasul (SM) are carried out. Quraan and Sunnah should be rejected (nauzbillah), with the excuse that they are traditions of the past of more than 1000 years. …Amartya in his ‘The Argumentative Indian’ has repeatedly mentioned that (Islamic and Muslim) tradition should be rejected and ‘rahi aqbal’ theory given by Emperor Akbar should be accepted as the main principle. He has even gone to the extent of saying that this demon tradition should and must be fought and rejected by the society.’ অর্থাত্, ‘অমর্ত্যের মতামত অনুযায়ী আল্লাহ ও রাসুল (সা.)-এর নির্দেশিত পথকে প্রত্যাখ্যান করার মাধ্যমে যে ‘ইসলাম’ আসবে সেটাকে গ্রহণ করা যেতে পারে। হাজার বছরেরও বেশি পুরনো মতাদর্শ হওয়ায় কোরআন ও সুন্নাহ বর্জন করা উচিত (নাউজুবিল্লাহ)। …অমর্ত্য তার ‘আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’-এ বলেছেন, ইসলামের মৌলিক আদর্শ হিসেবে পুরনো মতাদর্শ (ইসলাম ও মুসলিম) বর্জন করে সম্রাট আকবরের ‘রাহি আকবল’কে গ্রহণ করা উচিত। তিনি আরও এক ধাপ এগিয়ে বলেন, সমাজের অবশ্যই উচিত এই দানবীয় ঐতিহ্যের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া ও প্রত্যাখ্যান করা।’

ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘ড. অমর্ত্য সেন ধর্মনিরপেক্ষতাবাদকে হিন্দুত্ববাদ হিসেবে দেখিয়েছেন। এমনকি দেখিয়েছেন, ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ অর্থ হলো ইসলাম ত্যাগ করা এবং প্রকৃতপক্ষে হিন্দুত্ববাদকে গ্রহণ করা। কেননা হিন্দুত্ববাদ যে কোনো ধর্মের চেয়ে প্রচলিত মতের বিরোধিতার কারণে শ্রেষ্ঠ।’ (বাংলাদেশ পলিটিক্যাল সায়েন্স রিভিউ, পৃষ্ঠা-৪৪) ড. অমর্ত্য সেন ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ হিন্দুধর্ম থেকে উদ্ভব বলে চিত্রায়িত করেছেন। এ বিষয়ে ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী বলেন : ্তুঅসধত্ঃুধ নড়ধংঃং ংবপঁষধত্রংস, নঁঃ ধষষ রঃং ত্ড়ড়ঃং ধত্ব ঁষঃরসধঃবষু ফরংপড়াবত্বফ নু যরস ভত্ড়স ঐরহফঁ ঢ়যরষড়ংড়ঢ়যু, ঐরহফঁ ত্বষরমরড়হ ধহফ ঐরহফঁরংস.্থ অর্থাত্, অমর্ত্য ধর্মনিরপেক্ষতাবাদের দম্ভোক্তি করেছেন, কিন্তু এর মূল হিসেবে তিনি হিন্দু দর্শন, হিন্দু ধর্ম ও হিন্দুত্ববাদকে আবিষ্কার করেছেন।’ (বাংলাদেশ পলিটিক্যাল সায়েন্স রিভিউ, পৃষ্ঠা-২৮)

আবার, আকবরের পরিচালিত মুসলিম শাসনের অনেকটা হিন্দু ধর্মের দ্বারা প্রভাবিত বলে মনে করেন ড. অমর্ত্য সেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন : ‘Akbar not only made unequivocal pronouncements on the priority of tolerance, but also laid the formal foundations of a secular legal structure and of religious neutrality of the state. …Despite his deep interest in other religions and his brief attempt to launch a new religion, Din-ilahi (God’s religion), based on a combination of good points chosen from different faiths, Akbar did remain a good Muslim himself.’ অর্থাত্, আকবর কেবল ধৈর্যের প্রাধান্যের দ্ব্যর্থহীন ঘোষণাই দেননি, তিনি রাষ্ট্রের ক্ষেত্রে ধর্মের নিরপেক্ষতা ও ধর্মনিরপেক্ষতাবাদের আনুষ্ঠানিক ভিত্তিও রচনা করেন। …অন্য ধর্ম সম্পর্কে গভীর আগ্রহ এবং সংক্ষিপ্ত উদ্যোগে তিনি বিভিন্ন বিশ্বাসের (ধর্ম) ভালো দিকগুলো সমন্বয় করে নতুন ধর্ম দ্বীন-ইলাহীর (ঈশ্বরের ধর্ম) উদ্ভাবন করেন। আর এভাবে আকবর একজন ভালো মুসলমান হয়ে থাকেন। (আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান, পৃষ্ঠা-১৮)

ইসলামের প্রকৃত বিশ্বাসের (কোরআন-সুন্নাহ) নীতিমালা সময়ের বিবর্তনে যৌক্তিক পর্যালোচনায় পরিবর্তন করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন ড. অমর্ত্য সেন। আর এক্ষেত্রে সম্রাট আকবরের একটি মন্তব্য উদ্ধৃত করেন তিনি : ‘The pursuit of reason and rejection of traditionalism are so brilliantly patent as to be above the need of argument. If traditionalism were proper, the prophets would merely have followed their own elders (and not come with new messages).’ অর্থাত্, যৌক্তিকভাবেই যুক্তির অনুসরণ এবং ঐতিহ্যের প্রত্যাখ্যান সাহসিকতার (মেধার) সঙ্গে উন্মুক্ত করা দরকার। ঐতিহ্য যদি সঠিক হতোই, তবে নবীরা শুধুই তাদের পূর্ববর্তীদের অনুসরণ করতেন (এবং তারা নতুন বার্তা নিয়ে আসতেন না)।

এ উদ্ধৃতি দেয়ার পর ড. অমর্ত্য সেন বলেন : ‘Reason had to be supreme, since even in disputing the validity of reason we have to give reasons.’ অর্থাত্, যুক্তিকেই প্রধান হতে হবে, যুক্তির বৈধতা নিয়ে বিতর্ক থাকলে সেক্ষেত্রে আমাদের অধিকতর যুক্তি দিতে হবে।’

বইয়ের দ্বিতীয় অংশে ভারতীয় সেক্যুলারিজমের দীর্ঘ ইতিহাস তুলে ধরা হয়। এতে তিনি সেক্যুলারিজমকে তার নিজের ধর্মের (হিন্দু ধর্ম) সন্তান হিসেবে চিত্রায়িত করেন।

ড. অমর্ত্য সেনের মতে, সেক্যুলারিজম হিন্দু ধর্ম থেকে এসেছে। সম্রাট আকবর ভারতীয় সেক্যুলারিজমের অগ্রগতিতে সহায়তা করেছেন। আর সেক্ষেত্রে তিনিও হিন্দু ধর্ম দ্বারা প্রভাবিত। তবে সম্রাট আওরঙ্গজেব ইসলামী বিধি অনুযায়ী শাসন পরিচালনা করায় ড. অমর্ত্য সেনের সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছেন। অমর্ত্য সেন মনে করেন, মুসলিম আর ইসলাম হলো সাম্প্রদায়িক। নিজেকে অজ্ঞেয়বাদী হিসেবে পরিচয় দিলেও তার বইয়ে তিনি হিন্দুদের তেত্রিশ কোটি ঈশ্বরের অস্তিত্বের বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

গীতা ও ঋৃক বেদে তর্কপ্রিয় ঐতিহ্যের প্রাধান্য রয়েছে। যুক্তি, তর্ক, গণতান্ত্রিক ধারা হিন্দু ধর্মের আদর্শ। আর এ থেকেই ভারতে আধুনিক গণতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠা পেয়েছে বলে অমর্ত্যের ধারণা।

কিন্তু হিন্দু ধর্মে প্রচলিত বহু দেবতার জড়ীয় অস্তিত্ব এবং নিজেদের হাতে বানানো দেবতাকে পূজা করার পেছনে বৈজ্ঞানিক কোনো যুক্তি উপস্থাপন করা যায় না। একজন নোবেলজয়ী জ্ঞানী ব্যক্তি হয়েও অমর্ত্য সেন হিন্দু ধর্মের এই অসারতার বিষয়টি অনুধাবন করেননি। বরং সেক্যুলারিজমসহ অন্য ধর্মগুলোকেও তিনি হিন্দু ধর্মের মধ্যে গুলিয়ে ফেলার অভিপ্রায়ে লিপ্ত হন।

সমালোচনায় ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ড. অমর্ত্য সেন সেক্যুলারিজমে বিশ্বাসী হওয়ার কথা বললেও নিজের হিন্দু ধর্মকে তিনি ত্যাগ করতে চাইছেন না। এমনকি সেক্যুলারিজমের মূল সংজ্ঞা অনুযায়ী সব ধর্মকে রাষ্ট্র থেকে সম-দূরত্ব ও সম-মর্যাদা প্রদানের বিষয়টিও তার বইয়ে বিবেচিত হয়নি। হিন্দু ধর্মকে উলঙ্গভাবে সমর্থন করা হয়েছে। একদিকে তিনি হিন্দু ধর্মকে ইতিবাচকভাবে সমর্থন করেছেন, আবার ইসলাম ধর্মকে প্রত্যাখ্যান করেছেন। ধর্মীয় ঐতিহ্যের আলোচনায় হিন্দু ধর্ম থেকে আগত প্রথাকে তিনি শতভাগ গ্রহণীয় এবং ইসলাম ধর্ম থেকে আগত প্রথাকে আইনত অকার্যকর বলে চিহ্নিত করেছেন।

আরগুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান বইয়ের ২১ পৃষ্ঠায় নোবেলবিজয়ী ড. অমর্ত্য সেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সমাবর্তনে সব ধর্মের পবিত্র গ্রন্থ থেকে তেলাওয়াত করার সমালোচনা করেন। এমনকি তিনি এতে ‘আঘাত’ পেয়েছেন বলে উল্লেখ করেছেন। ১৯৯৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সমাবর্তন অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. অমর্ত্য সেন অতিথি হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন। এ অনুষ্ঠানে সব ধর্মগ্রন্থ পাঠ করার মাধ্যমে ‘সেক্যুলার’ দৃষ্টিভঙ্গির প্রমাণ রাখা হয়েছিল। গত ১ ফেব্রুয়ারি বাংলা একাডেমীর একুশে বইমেলা উদ্বোধনেও ড. অমর্ত্য সেন অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। সেখানেও একই ধারায় সব ধর্মগ্রন্থের প্রতি সম্মান জানানো হয়। কিন্তু অমর্ত্য সেনের নিজ দেশ ভারতে সেক্যুলারিজম রাষ্ট্রনীতি হলেও সেখানে কেবল হিন্দু ধর্মগ্রন্থকে অধিকতর গুরুত্ব দেয়ার সমালোচনা করেন ড. হাসানুজ্জামান।

ইসলাম ধর্মে পর্দা প্রথার সমালোচনা করে অধ্যাপক ড. অমর্ত্য সেন তার বইয়ের ২০ পৃষ্ঠায় বলেন, পোশাক পরিধানে নিরপেক্ষতা এবং নিষেধাজ্ঞার দুটি বিষয় আছে। ব্যক্তি ইচ্ছা অনুযায়ী যে কোনো পোশাক পরিধান করতে পারে। আর রাষ্ট্র বা ধর্ম এক্ষেত্রে কোনো নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে না। একথা বলার পরই তিনি ফ্রান্সে বোরকা পরা নিষিদ্ধ করার রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্তের পক্ষে অবস্থান নেন। মুসলমানদের মাথায় স্কার্ফ (পর্দা) পরাকে তিনি লিঙ্গবৈষম্য হিসেবে অভিহিত করেন।

ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী পর্দাপ্রথা সম্পর্কে ড. অমর্ত্য সেনের মতের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, কোরআনে পর্দাপ্রথার যে গুরুত্ব বর্ণনা আছে, সে সম্পর্কে তিনি কোনো ধারণা না নিয়েই মিথ্যা যুক্তি উপস্থাপন করেছেন। এক্ষেত্রে তিনি পবিত্র কোরআনের উদ্ধৃতি দেন। সুরাহ আল আহজাবে বলা হয়েছে, ‘হে নবী, আপনার স্ত্রী, কন্যা এবং মুমিন নারীদের বলে দিন, তারা যেন মাথাসহ শরীর ঢেকে রাখে। এটা ভালো হবে যে, তা বিশৃঙ্খলার (ডিস্টার্ব) হাত থেকে রক্ষা পেতে সহায়তা করবে। আল্লাহ সর্বক্ষমাশীল ও করুণাময়।’ ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী এ উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, কোরআনে যেখানে স্বয়ং আল্লাহ ‘পর্দা’ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন, ড. অমর্ত্য তা প্রত্যাখ্যানের পরামর্শ দেন। এটা নিঃসন্দেহে বিভ্রান্তিকর মন্তব্য।

সেক্যুলারিজম ও প্রকৃত সত্য : ড. অমর্ত্য সেনের ব্যাখ্যার সমালোচনার পাশাপাশি ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী সেক্যুলারিজমের প্রকৃত ধারণা উপস্থাপন করেন। তার মতে, সেক্যুলারিজমের ধারণা মূলত ইউরোপে শুরু হয়। গির্জা ও ধর্মগুরুদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের পথ ধরে হজরত ঈসা (আ.)-এর ধর্ম বিবর্তিত হয়ে খ্রিস্টান ও পরবর্তীকালে সেক্যুলারিজমের ধারণার সৃষ্টি হয়। ধর্ম প্রচারের একপর্যায়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে হজরত ঈসা (আ.)-এর অনুপস্থিতিতে তার প্রবর্তিত ধর্মকে ইচ্ছামত পরিবর্তন করেন পল। এ পরিস্থিতিতে ‘ইঞ্জিল’ পরিবর্তিত হয়ে ‘বাইবেল’ তৈরি করা হয়। মুসলমানদের ধর্মকে উপেক্ষা করে মানবরচিত রীতি নিয়ে খ্রিস্টান ধর্ম পরিচালনা শুরু হয়। কলুষিত খ্রিস্টান ধর্মকে মানুষ প্রত্যাখ্যান করে। রোমান ক্যাথলিক ধর্মের বিপরীতে প্রটেস্টান্ট নীতিবিদ্যার আদলে নানা ধর্মমত গড়ে ওঠে। পারস্পরিক দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ে এসব গোষ্ঠী। এতে জনজীবনে অশান্তি নেমে আসে। ক্যালভিন, লুথারসহ অনেকে এসব অশান্তি রোধে এগিয়ে আসেন। উইলিয়াম ওকাম, জন সেলিসবারি একটি নতুন আন্দোলন গড়ে তোলেন। ম্যাকাইভেলি রাষ্ট্র থেকে ধর্মকে বিচ্ছিন্ন করে বিদ্যমান অশান্তি রোধে ভূমিকা রাখেন। সংস্কার ও রেনেসাঁ সংঘটিত হয়। দ্বান্দ্বিক খ্রিস্টান ধর্মের নানারূপ রাষ্ট্র, অর্থনীতি, সমাজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতিতে বাধা হিসেবে দেখা দেয়।

এ পরিস্থিতিতে ইউরোপে খ্রিস্টান ধর্ম উপেক্ষিত হয় এবং তা কেবল ব্যক্তিগত জীবনেই ব্যবহার করা হতে থাকে। বিবর্তনের এ ধারায় রাষ্ট্র ধর্মনিরপেক্ষ হয়ে ওঠে।

ড. হাসানুজ্জামান চৌধুরী সেক্যুলারিজমকে প্রত্যাখ্যাত মতবাদ হিসেবে প্রমাণের চেষ্টা করেন। এক্ষেত্রে তিনি কয়েকজন বিজ্ঞানীর গবেষণা ও তত্ত্ব উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, বিজ্ঞান এরই মধ্যে সেক্যুলারিজমকে প্রত্যাখ্যান করেছে; বিগ ব্যাং তত্ত্ব, দেশ-কাল-পদার্থ-শক্তি তত্ত্ব, বিশ্বতাত্ত্বিক তত্ত্বের বিস্তৃত রূপসহ নানা তত্ত্ব আবিষ্কারের মাধ্যমে সর্বশক্তিমান আল্লাহর অস্তিত্ব প্রমাণ করেছে। বিজ্ঞানী পল ডেভিস তার ‘সুপার ফোর্স’ এবং ‘কসমিক ব্লু প্রিন্ট’, পদার্থবিদ হেনস্্্্্ তার ‘প্যাগেলস্্্্্ ইদ কসমিক কোড’ এবং ‘পারফেক্ট সাইমেট্রি’, স্যামুয়েল ভিসকাউন্ট তার ‘বিলিফ অ্যান্ড অ্যাকশন’ গেরাল্ড শ্রয়ডার তার ‘দি হিডেন ফেস অব গড : সায়েন্স রিভিলস্্্্্ ইদ আলটিমেট ট্রুথ’ বইয়ে আল্লাহর অস্তিত্ব প্রমাণ করেছেন এবং ধর্মনিরপেক্ষতাবাদকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

Source : http://www.amardeshonline.com/pages/details/2011/04/05/75481

 

An Illuminati Primer

Source : savethemales.ca

satanic

By Henry Makow Ph.D.

Politics has banished Religion from public discourse but Religion still offers the best description of political reality.

The essence of political struggle is actually spiritual, a cosmic battle between God (Good) and Satan (Evil) for the soul of man.

The struggle is between an international financial elite dedicated to Satan, led by the Illuminati, and the remnants of humanity that still uphold God’s Plan. The unsuspecting masses hang in the balance, inhabiting a fool’s paradise like children.

This struggle is not between nations, religions or between ideologies of Left or Right. This occult elite creates and controls both sides of every conflict in order to obscure and at the same time advance its long-term agenda.

The elite plan is to remake the planet as its private neo feudal preserve. This involves the reduction of the world’s population through plague, catastrophe or war; mind control/breeding of the survivors as serfs; and the enshrinement of Lucifer as god.

A cataclysm could happen within the next 10-20 years. We’re living on borrowed time, duped by the media and distracted by sex while the elite tests and imposes various methods of manipulation and control.

Thousands of organizations like the UN promote the elite’s “world government” agenda with practically no public scrutiny. More recently, the elite instigated the Sept. 11 attacks in order to justify their “War on Terror” the repressive “Patriot Act”, and Iraq War. The flooding of New Orleans, vaccinations and the bird flu epidemic are other tests or possible harbingers.

Sophisticated and dedicated people roll their eyes when told about this conspiracy. They are hypnotized by their “education” and the mass media.

The “Illuminati” sounds fantastic but it is NOT a chimera. Hidden within Freemasonry, it is the Church of Satan. Its membership was known; its premises were raided. Plans and correspondence were seized and published. Defectors attested to the grave danger at formal inquiries. It was suppressed but went underground. It has since grown so powerful that it has literally defined the modern age (under the guise of “progress,” “reform” and “revolution”) and now threatens the future of humanity.
THE ORIGIN OF MODERN DYSFUNCTION
The term “Illuminati” means “enlightened ones” and refers to Lucifer, the “light bringer.” Its essential philosophy is to substitute “reason” i.e. expedience for “right reason” i.e. universal morality.

“Do as thou wilt” was the Illuminati motto. The Illuminati will define reality, not God or nature. Illuminism or “humanism” is a secular religion and a transition to Satanism (i.e. “tolerance”). The decline of public decency makes this increasingly apparent. Look for the world to increasingly resemble the game “Grand Theft Auto” or an occult Hollywood feature.

Whether it’s a plant, a dog or a child, each flourishes naturally following its inherent design given a little nourishment and love. The Illuminati wishes to negate the inherent course of human development by promoting dysfunction under such guises as “freedom” and the cookie cutter of “equality.”

The Illuminati represents the traditional feudal power elite, the alliance of European aristocracy and Jewish moneylenders, united by money, marriage and the occult. In 1770, Mayer Rothschild hired the 22-year-old Adam Weishaupt, a university instructor (son of a rabbi raised as a Catholic) to attract the cream of European society to a secret cult designed to reverse the course of Western (i.e. Christian) civilization (hence the term “revolution.”)

I am summarizing “Final Warning” an online book by David Allen Rivera and James Wardner’s excellent book “Unholy Alliances” (pp.34-51)

The Illuminati was founded May 1, 1776. Weishaupt wrote: “The great strength of our Order lies in its concealment, let it never appear, in any place in its own name, but always covered by another name, and another occupation. None is fitter than the three lower degrees of Freemasonry; the public is accustomed to it, expects little from it, and therefore takes little notice of it.”

An understanding was reached with the Masons at the Congress of Wilhelmsbad on December 20, 1781 to add the Illuminati hierarchy to the first three degrees of Masonry. On returning home, Comte de Virieu, a Mason from the Martiniste lodge at Lyons, reported: “I can only tell you that all this is very much more serious than you think. The conspiracy which is being woven is so well thought out that it will be impossible for the Monarchy and the Church to escape it.”

Nesta Webster in her book World Revolution describes the modus operandi of the Illuminati. It applies to Adolph Hitler as well as Timothy Leary: “The art of Illuminism lay in enlisting dupes as well as adepts, and by encouraging the dreams of honest visionaries or the schemes of fanatics, by flattering the vanity of ambitious egotists, by working on unbalanced brains, or by playing on such passions as greed and power, to make men of totally divergent aims serve the secret purpose of the sect.”

The Illuminati also used bribes of money and sex to gain control of men in high places, and then blackmailed them with the threat of financial ruin, public exposure or assassination. This continues to the present day.

Weishaupt wrote: “One must speak sometimes in one way, sometimes in another, so that our real purpose should remain impenetrable to our inferiors.” And what was that purpose? It was “nothing less than to win power and riches, to undermine secular or religious government, and to obtain the mastery of the world.”

The first priority was to enlist writers, publishers and educators. The modern pantheon of great thinkers, from Darwin to Nietzsche to Marx, were Illuminati pawns or agents. Of one university, Weishaupt wrote: “All the professors are members of the Illuminati…so will all the pupils become disciples of Illuminism.” (Wardner, 45)

As the Order spread throughout Germany, money was contributed from such leading Jewish families as the Oppenheimers, Wertheimers, Schusters, Speyers, Sterns and of course, the Rothschilds. Gerald B. Winrod wrote in his book Adam Weishaupt: A Human Devil “of the thirty-nine chief sub-leaders of Weishaupt, seventeen were Jews.”

From Bavaria, the Order of the Illuminati spread like wildfire… Soon they had over 300 members from all walks of life, including students, merchants, doctors, lawyers, judges, professors, civil officers, bankers, and even church ministers. Some of their more notable members were: the Duke of Orleans, Duke Ernst Augustus of Saxe-Weimar-Coburg-Gotha, Prince Charles of Hesse-Cassel, Johann Gottfried von Herder (a philosopher), Count Klemens von Metternich, Catherine II of Russia, Count Gabriel de Mirabeau, Marquis of Constanza (“Diomedes”), Duke Ferdinand of Brunswick (“Aaron”), Duke Karl August of Saxe-Weimar, Johann Wolfgang von Goethe (a poet), Joseph II of Russia, Christian VII of Denmark, Gustave III of Sweden, and King Poniatowski of Poland.

By the time of the 3rd Masonic Congress in Frankfurt in 1786, the Illuminati virtually controlled all the Masonic lodges, which represented three million secret society members across the various German provinces, Austria, Hungary, England, Scotland, Poland, France, Belgium, Switzerland, Italy, Holland, Spain, Sweden, Russia, Ireland, Africa, and America. (Wardner, p. 39)

In the 1790’s there was an Illuminati scare in the United States. At Charlestown, in 1798, the Reverend Jedediah Morse preached: “Practically all the civil and ecclesiastical establishments of Europe have already been shaken to their foundations by this terrible organization, the French Revolution itself is doubtless to be traced to its machinations…”
(Wardner 48)

In 1832 William Russell established a chapter of the Illuminati at Yale called the “Skull and Bones.” President G.W. Bush, his father and John Kerry are members.

On Sept. 9, 1785, Joseph Utzschneider, a lawyer, and two other defectors revealed the Illuminati goals before a Court of Inquiry in Bavaria: Abolition of the Monarchy and all ordered government; Abolition of private property (which the Illuminati will assume); Abolition of Patriotism (nations); Family, (through the abolition of Marriage, Morality, and by government providing “Education” for children) and finally, Abolition of all Religion, particularly Christianity.

These are exactly the goals of Communism, enunciated by Marx in 1848. The Illuminati and Communism go hand-in-glove. The term “Reds” originates with “Red Shield” the Rothschild name. The satanic five-pointed star is the symbol of both.
CONCLUSION
Mankind has taken a wrong turn and appears doomed to annihilation. The political, cultural and economic elite of the West is either dupes or willing agents of a satanic conspiracy of cosmic proportions.

If we and our children are to suffer and die prematurely, at least we know the real reason. That is a privilege not granted to millions of our ancestors.

God and Satan made a wager for the soul of man. If God wins, man revels in the glory of his Divine Birthright. If Satan wins, man is destroyed. In a nutshell, this is the religious nature of politics.

We can instantly recapture an essential part of religion by incorporating the dictim, “Do Unto Others as You Would Have Them Do Unto You,” in our lives. The essence of all true religion is to obey God (i.e. spiritual ideals like justice, truth and love) instead of personal desire, to be selfless instead of selfish. Like a snowflake, this is how disparate elements arrange themselves according to the Plan ( i.e. Love) and achieve Perfection.

Secrets hidden in the half-dollar!

Source : Bofads

In our groundbreaking exposes Secrets of the Illuminati and More Secrets of the Illuminati, we enlisted the help of famed Harvard Symbologist Dr. Hugh Janus to decrypt secret Illuminati codes and messages hidden in the $10 and $2 bills.  At great risk to ourselves, we went back to Dr. Janus to explain even more mysteries.  He was reluctant to speak with us, leading us to wonder whether the Illuminati had gotten to him.  However, our quest for the truth was not a total failure.  Dr. Janus, whose specialty is messages hidden in paper money, referred us to his colleague and frequent research partner coinologist Dr. Micheal Ockhertz to explain the Illuminati mysteries hidden within a common fifty cent coin.

While they aren’t used that much nowadays, the fifty cent piece has a long and storied legacy as the most important coin in America.  Half dollar coins have been produced nearly every year since the inception of the U.S. Mint in 1794.  The only coined to have been minted more consistently is the cent.  Before inflation made them a pain to carry around, everyone used the fifty cent piece.  Therefore, it is no surprise that the coin has become a carrier for the coded messages of … the Illuminati.

Dr. Ockhertz showed us a key feature of the fifty cent coin: The back of the coin is the Seal of the President of the United States.  We asked Dr. Ockhertz whether this could be due to a coincidence.  He assured us that this is no accident – there was a purposeful choice to use the same logo on both the fifty cent coin and the Seal of the President of the United States.  This shows just how deeply the American government has become ensnared into the tentacles of the powerful group known as … the Illuminati.


Click to enlarge

Postscript: The Illuminati are most likely mobilizing right now to stop our message of knowledge. Educate yourself, because knowledge is power. It is only a matter of time before they shut this site down in an attempt to silence us.  Please forward this link to everyone you know.  We have to get this message of truth out before we become the next target of … the Illuminati.

Sandusky Ohio: Illuminati Headquarters?

Source : Bofads

Venice, Rome, Paris, Washington D.C. – these cities are all associated with the Illuminati.  But there is one city that has a stronger tie to the Illuminati than all of them put together.  That city is Sandusky, Ohio.  We met with noted French cartographer (map expert) Jacques Itche to discuss cities whose layout was influenced by the Illuminati.  When Itche told us that Sandusky topped the list of Illuminati cities, we laughed at him.  Then he showed us the evidence.

This first picture is a satellite map of Sandusky.  As you can see, the streets are clearly positioned to form the Illuminati seal.

sandusky ohio map illuminati

Even after the first picture, we were not convinced until Itche stripped away the clutter from the image and allowed us to focus on the streets themselves.  Most cities are arranged in a grid, with horizontal and vertical streets.  But Sandusky adds the diagonal streets.  Why would a city add these seemingly useless streets?  And why would the streets end at the exact point where the Illuminati seal is completed?

Sandusky was founded in 1818.  Sandusky’s websiteindicates that German and Irish stonecutters were attracted to the area to fill the city’s building needs.  This provides the first clue.  The Napoleonic Wars raged from 1792 to 1814, causing upheaval across Europe.  It is now known that the Napoleonic Wars were one of the few wars that were waged without Illuminati consent.  As a result, Illuminati operations were interrupted.  The Illuminati realized they needed a western outpost to rule America in case European control was hindered by further social disruption.  Immigration to the United States grew exponentially during this time, and the Illuminati snuck their members into the country posing as Irish and Germans.  With the communication lines in disarray, the Illuminati in Europe were unable to tell the American sleeper agents where to go.  Instead used the Sandusky city layout as a beacon to Illuminati agents to move to the city.  Those German and Irish stonecutters?  Illuminati.

sandusky ohio map illuminati

Itche also provided a more sinister explanation for the strange street layout.  There is a school of researchers who believe that the street layout is a beacon to the alien life forms recently discovered by NASA.  According to this theory, the Illuminati sleeper agents who immigrated to Sandusky were collaborating with aliens.  The streets can be viewed with a high powered microscope from space.  The aliens would then use this signal (and others like it) to know where to abduct people for their experiments.  In exchange, the Illuminati got samples of the alien DNA to help them develop super-soldiers.

Shockingly, there is evidence of increased U.F.O. activity around Sandusky that supports this theory:

* February 2, 1959:  A University of Michigan Professor and his wife saw a yellow half-sphere in the sky.

* April 22, 1966:  State Trooper Alex Fisher witnessed a “brilliant ball of light” in the sky for more than an hour.

* September 13th, 2007:  Three witnesses observed an elliptical shaped object in the sky over Sandusky.

sandusky ohio illuminati

Could this be a beacon to extraterrestrials?

Postscript: The Illuminati are most likely mobilizing right now to stop our message of knowledge. Educate yourself, because knowledge is power. It is only a matter of time before they shut this site down in an attempt to silence us.  Please forward this link to everyone you know. We have to get this message of truth out before we become the next target of … the Illuminati.

%d bloggers like this: